উপবৃত্তির টাকা নিতে জন্ম সনদ বাধা নয়।

ঢাকা: প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্ম নিবন্ধন সনদ জটিলতায় উপবৃত্তি বাধাগ্রস্ত হবে না বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।

সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে বাংলাদেশ ডাক বিভাগের ডিজিটাল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’র মাধ্যমে প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি ও শিক্ষা উপকরণ ভাতা ডিজিটাল পদ্ধতিতে বিতরণ কার্যক্রম অনুষ্ঠানে এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা বলেন।

 ভাতা ও উপবৃত্তি বিতরণের উদ্বোধন করেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী।

এ সময় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব গোলাম মো. হাসিবুল আলম, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম, ডাক বিভগের মহাপরিচালক মো. সিরাজ উদ্দিন এবং ‘নগদ’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর এ মিশুক উপস্থিত ছিলেন।

প্রথম দফায় ছয় জেলার ৬৫৫টি স্কুলের ৮৬ হাজার ৪৫২ জন শিক্ষার্থীর অভিভাবকের ‘নগদ’ অ্যাকাউন্টে উপবৃত্তি এবং শিক্ষা উপকরণ ভাতা দেওয়া হলো। চলতি বছর সব মিলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ‘নগদ’র মাধ্যমে এক কোটি ৪০ লাখ শিক্ষার্থীকে ভাতা ও উপবৃত্তি দেবে, প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা বিবেচনায় ডিজিটাল পদ্ধতিতে বৃত্তি বিতরণে যা বিশ্বের সর্ববৃহৎ ঘটনা। বিতরণ পদ্ধতির অস্বচ্ছতা ও দীর্ঘসূত্রিতায় প্রায় এক বছর উপবৃত্তি এবং শিক্ষা উপকরণ ভাতা বিতরণ বন্ধ ছিল। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় গত ১৩ ডিসেম্বর ‘নগদ’র সঙ্গে চুক্তি করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। ‘নগদ’র মাধ্যমে বিতরণের ফলে এক্ষেত্রে স্বচ্ছতা নিশ্চিত হবে এবং সরকারের খরচ এক-তৃতীয়াংশে নেমে আসবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগে যত্রতত্র সিম ব্যবহার করা হত। এর টাকা ও তুলে নিত। দেওয়া হত না। এখন মায়েদের নাম্বার থাকতে হবে। বাচ্চার জন্ম নিবন্ধন থাকতে হবে। ‘নগদ’ আমাদের ডাক বিভাগের প্রতিষ্ঠান। তার ওপরে আমাদের অনেক টাকা খরচ বাঁচবে। সুতরাং ‘নগদ’-কে বেছে না নেওয়ার কোনো কারণ থাকতে পারে না।

শিওর ক্যাশের নামে নানা অনিয়মের বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশন তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করছে। আমাদের এসব তথ্য উপাত্তের কারণে সম্ভব হচ্ছে।

এখনও শতভাগ স্কুলে জন্ম নিবন্ধন সনদ নিতে পারেনি, এসব শিশু উপবৃত্তির সুবিধা পাবে কিনা-প্রশ্নে প্রতিমন্ত্রী বলেন, সব শিক্ষার্থী উপবৃত্তির সুবিধা পাবে। আমরা যেগুলো দিতে পারিনি সেগুলো দ্রুত করার ব্যবস্থা নিচ্ছি।