শহীদ মিনারে র‌্যাবের তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা : র‌্যাব ডিজি

এস,এম,মনির হোসেন জীবন : যেকোনো বিশৃঙ্খলা, অপতৎপতা ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম প্রতিরোধে ছদ্মবেশে ও সাদা পেশাকে র‌্যাব সদস্যরা ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকাকে পাঁচটি সেক্টরে ভাগ করে র‌্যাবের তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার এবং কঠোর নজরদারি থাকবে বলে জানিয়েছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন।
শহীদ মিনার এলাকাকে পাঁচটি সেক্টরে বিভক্ত করে পুলিশের সঙ্গে সমন্বয় করে র‌্যাবের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
তিনি বলেন, অমর একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনে শহীদ মিনার এলাকায় সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা বলবৎ থাকবে। যেকোনো বিশৃঙ্খলা, অপতৎপতা ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপ প্রতিরোধে র‌্যাব সদস্যরা দায়িত্ব পালনে নিয়োজিত থাকবেন।
আজ শনিবার দুপুর ১২টার দিকে ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শন ও পর্যবেক্ষণ শেষে সাংবাদিকদের সাথে এক প্রেসব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।
আজ দুপুরে ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ ও প্রেসব্রিফিংয়ে র‌্যাবের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এসময় উপস্থিত ছিলেন।
র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, ভাষা শহীদদের স্মরণে শনিবার মধ্যরাত থেকে সারাদেশে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির কারণে এবার সরকার নির্ধারিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে মহান শহীদ দিবস পালিত হবে।
র‌্যাব ডিজি বলেন, শহীদ মিনার এলাকায় আগতদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এবং বিশৃঙ্খলা ও যেকোনো সন্ত্রাসী কার্যক্রম এড়াতে র‌্যাবের পক্ষ থেকে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে র‌্যাব ডিজি বলেন, শহীদ দিবস ঘিরে এখন পর্যন্ত কোনো থ্রেটের তথ্য পাইনি। তবে,আমরা কোনো কিছুকেই হালকাভাবে নেইনা, যেকোনো সময় যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত রয়েছি। আমাদের প্রস্তুতি রয়েছে। তবে, কোনো ধরনের নাশকতার তথ্য নেই।
র‌্যাব ডিজি বলেন, সারাদেশে বিশেষ করে বিভাগীয় ও জেলা শহরগুলোতে যেকোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা এড়াতে র‌্যাব সদস্যদের ছদ্মবেশে ও সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত থাকবে। র‌্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড শহীদ মিনার এলাকা সুইপিং করবে এবং পরবর্তীতে স্ট্যান্ডবাই থাকবে।
অমর একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকেই র‌্যাবের নজরদারি অব্যাহত রয়েছে জানিয়ে র‌্যাব প্রধান বলেন, শহীদ মিনারের আশপাশে হোটেল-রেস্তোরাঁ, বস্তিসহ সন্দেহজনক সব স্থানে তল্লাশির মাধ্যমে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। শহীদ মিনার কেন্দ্রিক গুরুত্বপূর্ণ স্থানে চেকপোস্ট স্থাপন করে সন্দেহভাজনদের তল্লাশি করা হবে। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে শহীদ মিনারে আসা নারীদের প্রয়োজনে র‌্যাবের নারী সদস্যদের মাধ্যমে তল্লাশি করা হবে।
র‌্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, স্ট্রাইকিং ফোর্স স্ট্যান্ডবাই থাকবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, র‌্যাবের কন্ট্রোলরুম থেকে সিসিটিভি ক্যামেরার মাধ্যমে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হবে। যেকোনো স্থানে মুভমেন্টের জন্য র‌্যাবের হেলিকপ্টার প্রস্তুত থাকবে।
এছাড়া সারা দেশজুড়ে শহীদ মিনার কেন্দ্রিক নিরাপত্তায় যথেষ্ট সংখ্যক র‌্যাব সদস্য মোতায়েন থাকবে বলেও জানান তিনি।
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কোনো ধরনের হুমকি আছে কিনা সাংবাদিকদের এমম প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত কোন হুমকি পাই নাই। তবে আমরা জিনিসকে হালকাভাবে নেই নাই। যেকোন পরিস্থিতি মোকাবিলা করার জন্য প্রস্তুত আছি। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিশেষ কোন তথ্য এখনো আমাদের কাছে নেই।
#####
এস,এম,মনির হোসেন জীবন, ঢাকা, ২০ ফেব্রুয়ারি,২০২১
হটলাইন-০১৭১৮৪০১৬৮৫