সাংবাদিক হত্যা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে উত্তরায় মানববন্ধন

আমিনুল ইসলামঃ সাংবাদিক হত্যা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে রাজধানীর উত্তরার সকল সাংবাদিকবৃন্দ।

মোঙ্গলবার(২৩ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় উত্তরার সকল সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে এ মানববন্ধনে অংশ গ্রহন করেন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় কর্মরতসহ স্থানীয় সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।
মান্ববন্ধনে অংশ নিয়ে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রেখে বলেন, সাংবাদিক দেশের চতুর্থ স্তম্ভ। সাংবাদিক তার কলমের মাধ্যমে সত্য ও সঠিক তুলে ধরেন। সাংবাদিক আছে বলেই সমাজের অন্যায় দূর্নীতির খবর আপনারা জানতে পারেন । সাংবাদিক সত্যটা তুলে ধরেন বিধায় সাংবাদিক আপনাদের শত্রæ। যে কারনে অপরাধীরা সাংবাদিকদের উপর হামলা ও মিথ্যা মামলা করে পারপেয়ে যান। বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়ে অকালে সন্ত্রাসীর গুলিতে মৃত্যু বরন করেন। এটা নতুন নয়। এর আগেও এধরনের ঘটনা ঘটেছে। সাগর রুনি হত্যার বিচার আমরা আজও পেলাম না। উত্তরায় বসবাসরত দৈনিক বাংলাদেশ বুলেটিনের সিটি রিপোর্টার মোঃ আমিনুল ইসলাম ও দৈনিক জনতায় কর্মরত মাহফুজুর রহমান খোকন কাউন্সিলরের বর্বরত হামলার শিকার হন
এছাড়াও সারা দেশ ব্যাপি সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনা কম নয়।

কিন্তু আশানুরুপ কোন প্রতিকার আমরা পেলাম না। আর কত সাংবাদিকের উপর নির্যাতন হলে সন্ত্রাসীরা ঠান্ডা হবে। এধরনের হামলা ও হত্যাযোগ্যের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদসহ সাংবাদিক হত্যার সুষ্ঠু তদন্দ করে বিচারের দাবি জানিয়ে মানবন্ধন শেষ করা হয়।
সাম্প্রতি বোরহান উদ্দিন মাজাক্কির(২৫) রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়ে সন্ত্রাসীদের গুলিতে গুরুতর আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেলে মৃত্যু বরন করেন।

নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জে শুক্রবার বিকালে বসুরহাট পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জার অনুসারীদের সঙ্গে স্থানীয় আওয়ামী লীগের একাংশের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়।
সংঘষের ভিডিও চিত্র ধারন ও তথ্য সংগ্র করতে গেলে বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির(২৫) সন্ত্রাসীদের গুলিতে গুরুতর আহত হন। এসময় প্রথমে তাকে গুলিবিদ্ধ গুরুতর অবস্থায় প্রথমে তাকে ২৫০ শয্যা নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে রাতেই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয় সেখানেই তিনি মৃত্যু বরন করেন।
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত পৌনে ১১টার দিকে তার মৃত্যু হয় বলে মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানিয়েছেন।

২৫ বছর বয়সী মুজাক্কির দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার এবং অনলাইন নিউজ পোর্টাল বার্তা বাজারের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন।
তিনি উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের নোয়াব আলী মাস্টারের ছেলে। নোয়াখালী সরকারি কলেজ থেকে সম্প্রতি রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর শেষ করে সাংবাদিকতায় যুক্ত হন মুজ্জাকির।
তার মৃত্যুর খবরে উপজেলার চাপরাশির হাট বাজার এলাকায় রাতেই প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে এলাকাবাসী। হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তারা।