রাজধানীতে যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় এক নারী নিহত : ঘাতক বাস জব্দ

এস,এম,মনির হোসেন জীবন : রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে থানার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে পায়ে হেটে রাস্তা পারাপারের সময় ওয়েলকাম পরিবহন নামে একটি যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় এক নারী নিহত হয়েছেন।

নিহতের নাম রেহানা বেগম (৫০)।
পুলিশ দুর্ঘটনা কবলিত ঘাতক বাসটিকে জব্দ করলেও গাড়ি চালককে আটক করতে পারেনি।
নিহত রেহানা বেগম নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার নামপাড়া গ্রামের কাজী জসিম উদ্দিনের স্ত্রী। তার তিন মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে।

আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে দুপুর দেড় ১টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
ডিএমপির শেরেবাংলানগর থানার (এসআই) সমীর চন্দ্র ভৌমিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
এদিকে, নিহতের মেয়ে তানজিনা আক্তার মেঘলার উদ্বৃতি দিয়ে পুলিশের এ কর্মকর্তা জানান, মেঘলার মা নিহত রেহেনা দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। আজ সকালে গ্রাম থেকে মা-মেয়ে আবার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে আসেন সেই পরিক্ষার রিপোর্ট নিতে। রিপোর্ট নিয়ে তারা দু’জন হাসপাতাল থেকে বের হয় কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে আরেকটি পরীক্ষার রিপোর্ট আনার জন্য যাচ্ছিলেন।পরে হাসপাতাল থেকে বের হয়ে তার মাকে সাথে করে নিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলাম। এ সময় দ্রুতগতিতে ওয়েলকাম পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস এসে রাস্তার উপর সজোরে ধাক্কা দিয়ে রেহানা বেগম (৫০) গুরুতর আহত হন।
তিনি আরও বলেন, গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে দুপুর দেড় ১টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
এসআই সমীর চন্দ্র ভৌমিক আরও জানান, সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের সামনে ওয়েলকাম পরিবহনের একটি বাসের ধাক্কায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঘাতক বাসটি পুলিশ জব্দ করেছে কিন্তু গাড়ি চালক পালিয়ে গেছে।ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের মরদেহ ঢামেক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
শেরে বাংলানগর থানার ডিউটি অফিসার এসআই সাহেদা খানম আজ বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি আটক করা হয়েছে। এবিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের প্রস্তুতি চলছে।