প্রকাশ্য দিবালোকে যুবককে পেটালো, গ্রেফতার-৩

প্রকাশ্য দিবালোকে রংপুর প্রেসক্লাবের সামনের রাস্তায় ৮/১০ জন মিলে এক যুবককে পেটানোর একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ দেশব্যাপী তোলপাড় শুরু হয়েছে।আহত যুবক বর্তমানে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় ছবি দেখে শনাক্ত করে তিন যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১২ মার্চ) দুপুরে রংপুর মেট্টোপলিটন কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রশিদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আহত যুবক জাহাজ কোম্পানী এলাকার আব্দুল আলীমের ছেলে ফরহাদ (২৮) বলে জানা গেছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরীর প্রেসক্লাব এলাকায় একটি বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে নিকটাত্মীয় এক মেয়েসহ বাসায় ফিরছিলেন ফরহাদ। পথে প্রেসক্লাব সংলগ্ন একটি মুদ্রন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের দুই কর্মচারী মেয়েটিকে উত্ত্যক্ত করে। এতে ফরহাদ প্রতিবাদ করলে ওই কর্মচারীর সঙ্গে তার হাতাহাতি হয়।

একপর্যায়ে ফরহাদকে ধাওয়া করে প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে ধরে ৮/১০ জন যুবক লাঠি, রড, লোহার পাইপসহ দেশীয় অস্ত্র দিয়ে গণহারে তাকে পেটায়। প্রেসক্লাব থেকে স্থানীয় এক ফটোসাংবাদিক তার ছবি তুলে ফেসবুকে ছাড়লে ঘণ্টার ব্যবধানে তা ভাইরাল হয়ে যায়। এ নিয়ে তুমুল সমালোচনা শুরু হলে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। সন্ধ্যার পর ছবি দেখে শনাক্ত করে প্রেসক্লাব এলাকা থেকে তিন যুবককে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

আহত যুবককে বর্তমানে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ৬ নম্বর মেডিসিন ওয়ার্ডে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে ৬ নম্বর মেডিসিন ওয়ার্ডে দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. শান্ত জানান, যুবকটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে ইনজেকশন দিয়ে ঘুম পাড়ানো হচ্ছে।

বিষয়টি নিয়ে রংপুর মেট্টোপলিটন কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রশিদ বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ছবি দেখে তিন জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত আমরা কোনো অভিযোগ পাইনি। তাই নির্দিষ্ট আইন মোতাবেক তাদের তিন জনকে আদালতে পাঠানো হবে।