অপহরণের পাঁচদিন পর চার মাসের শিশুকে উদ্ধার করলো পুলিশ

এম হানিফ রানা(গাজীপুর) গাজীপুর থেকে অপহরণের ৫দিন পর মঙ্গলবার ৪ মাসের এক শিশুকে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের দুর্গম এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ।

এ ঘটনায় জড়িত মাদ্রাসার ছাত্রী এক কিশোরী ও তার মাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো- ময়মনসিংহের গৌরীপুর থানার গোপালপুর এলাকার খোকন মিয়ার স্ত্রী মাকসুদা আক্তার খুশি (৩৫) ও তাদের মেয়ে মোসাঃ সামিয়া (১৪)। তারা গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের বাসন থানাধীন নাওজোর এলাকার জয়নাল হাজীর বাড়ির ভাড়াটিয়া বলে জানা যায়।সামিয়া নাওজোর এলাকার মাদ্রাসার শিক্ষার্থী।

জিএমপি’র উপ-পুলিশ কমিশনার অপরাধ (উত্তর) জাকির হাসান জানান, গত ১১ মার্চ সকাল সাড়ে সাতটার দিকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নাওজোর এলাকার জয়নাল ড্রাইভারের টিনশেড বাড়ীর ভাড়াটিয়া মোঃ দেলোয়ার হোসেনের চার মাসের শিশু সন্তান জুনায়েদকে তার কেয়ারটেকার মোছাঃ রাশিদার কাছে রেখে শিশু জুনায়েদের মা রেমা আক্তার গার্মেন্টসে এবং বাবা দোকানে চলে যান।

একই বাড়িতে ভাড়া থাকেন খোকনের পরিবার। ওই দিন বিকেল তিনটার দিকে মোঃ মিলনের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে শিশুর পিতা দেলোয়ার হোসেন জানতে পারেন যে, তার ছেলেকে কে বা কারা অপহরণ করেছে। দেলোয়ার তাৎক্ষনিক তার বাসায় এসে কেয়ারটেকার মোছাঃ রাশিদার কাছে তার ছেলের বিষয়ে জানতে চাইলে সে জানায়, দুপুরে শিশু মোঃ জুনায়েদকে ঘরে রেখে কেক আনার জন্য পার্শ্ববর্তী দোকানে যায়। ফিরে এসে সে শিশু জুনায়েত দেখতে পায়নি। এ ঘটনায় শিশুটির পিতা দেলোয়ার হোসেন বাসন থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন।

বাসন থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ মিজানুর রহমান এ ঘটনার তদন্ত শুরু করেন। পরে তথ্য প্রযুক্তি ও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গাজীপুর এলাকাসহ বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে মঙ্গলবার ভোরে ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জ থানাধীন দরুন বড়বাগের প্রত্যন্ত দূর্গম এলাকা থেকে অপহৃত শিশু জুনায়েদকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় অপহরণের ঘটনায় জড়িত ওই দুই নারী মা ও মেয়েকে গ্রেফতার করা হয়েছে।