করোনায় আক্রান্ত হয়ে আবুল হায়াত হাসপাতালে ভর্তি

প্রবীন ও জনপ্রিয় অভিনেতা আবুল আয়াত করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তার চিকিৎসার জন্য প্লাজমা প্রয়োজন ছিল, যা পাওয়া গেছে।

 বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় আবুল হায়াতের বড় মেয়ে বিপাশা হায়াত ও ছোট মেয়ে নাতাশা তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন। প্রথমে বিপাশা হায়াত যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফেসবুক পোস্টে জানান, তার বাবা করোনা আক্রান্ত, চিকিৎসার জন্য জরুরিভিত্তিতে প্লাজমা প্রয়োজন।

এরপর নাতাশা হায়াত জানান, প্লাজমা পাওয়া গেছে। তিনি ফেসবুক পোস্টে লেখেন, আপনারা যারা ডোনারের জন্য পোস্ট শেয়ার করেছেন, যোগাযোগ করেছেন, তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। বাবার প্লাজমার জন্য আপাতত ডোনার পাওয়া গেছে। তার অবস্থা স্থিতিশীল। তবে ‘এ পজিটিভ’ ব্লাড গ্রুপের যারা প্লাজমা দিতে ইচ্ছুক, তারা আমার বা মা শিরি হায়াতের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। আমরা আপনাদের উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা বুঝি। আমাদের অবস্থাটাও বুঝতে চেষ্টা করুন। আমরা মানসিকভাবে বিপর্যস্ত। তাই ফোন বা মেসেজ না করে প্রার্থনা করুন।

তিনি আরও জানান, পজিটিভ হওয়ার পর গতকাল (বুধবার, ৩১ মার্চ) রাতে অল্প কিছু সিম্পটম নিয়ে আবুল হায়াতকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। তবে তিনি বেশ স্ট্যাবল আছেন। চিকিৎসকদের নজরদারিতে রয়েছেন।

৭৬ বছর বয়সী অভিনেতা আবুল হায়াত ১৯৬৯ সাল থেকে টিভি নাটকে অভিনয় করছেন। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে অসংখ্য নাটকের পাশাপাশি ‘আগুনের পরশমণি’, ‘জয়যাত্রা’, ‘গহীনে শব্দ’, ‘অজ্ঞাতনামা’সহ বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।

‘দারুচিনি দ্বীপ’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য ২০০৭ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন আবুল হায়াত।

গত ২৬ ডিসেম্বর তার অভিনীত সর্বশেষ ‘স্ফুলিঙ্গ’ চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায়। করোনার মধ্যেই চলচ্চিত্রটির শুটিং করেছিলেন তিনি।