করোনা সংক্রমণ রোধে ঢাকাসহ সারা দেশে র‍্যাবের রোবাস্ট পেট্রোলিং টহল

এস,এম,মনির হোসেন জীবন :করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে সরকারি বিধি নিষেধ কঠোরভাবে নিশ্চিত করার লক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে মাঠ পর্যায়ে র‍্যাবের রোবাস্ট পেট্রোলিং টহল জোরদার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) এর গনমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মইন।

তিনি আজ রাতে জানান, দেশে চলমান করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকারি বিধি নিষেধ কঠোরভাবে নিশ্চিত করার জন্য আজ ভোর থেকে ঢাকাসহ সারা দেশ জুড়ে মাঠ পর্যায়ে এ কার্যক্রম শুরু করেছে র‍্যাব ।
রাজধানীসহ সারা দেশজুড়ে সরকারের বেধে দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি পালনে প্রতিটি সদস্য কাজ করেছে জানিয়ে তিনি বলেন, এবার সারাদেশে চেকপোস্ট কার্যক্রম ও রোবাস্ট পেট্রোলিং চালু করেছে র‍্যাব।

এছাড়াও যারা অকারণে বাইরে বের হচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থাও গ্রহণ করছে র‍্যাব। একই সঙ্গে মানুষ যেন ঘরে থাকে, স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিত করা যায় সে বিষয়টিও সতর্কতার সঙ্গে দেখা হচ্ছে।
র‍্যাবের এ মূখপাত্র আরও জানায়, বুধবার সকাল থেকে র‍্যাব ফোর্সেস এর চেকপোস্ট কার্যক্রম ও রোবাস্ট প্যাট্রোলিং কার্যক্রম দেশব্যাপী চলমান রয়েছে।

চেকপোস্টে বিনা প্রয়োজনে সবাইকে ঘরের বাইরে না যাওয়ার বিষয়ে নিরুৎসাহিত করা হয়। সরকারি বিধিনিষেধ চলাকালে জরুরি প্রয়োজনে ঘরের বাইরে যাওয়ার ক্ষেত্রে মুভমেন্ট পাস নিয়ে যাওয়ার প্রতি উৎসাহিত করা হয়।

কমান্ডার খন্দকার আল মইন আরও বলেন, বুধবার ভোর থেকে দেশব্যাপী র‍্যাবের সবগুলো ব্যাটালিয়ন চেকপোস্ট কার্যক্রম ও রোবাস্ট পেট্রোলিং কার্যক্রম পরিচালনা করছে। জরুরি প্রয়োজনে ঘরের বাইরে যাওয়ার ক্ষেত্রে মাস্ক পরিধান করা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়। সচেতনতা তৈরিতে মানুষের মাঝে করোনা প্রতিরোধে লিফলেট বিতরণ করা হয়।
র‍্যাবের গনমাধ্যম শাখার মুখপাত্র সাংবাদিকদের বলেন, আজ বুধবার (১৪ এপ্রিল) পয়লা বৈশাখে সরকারি ছুটি, সঙ্গে রমজানের প্রথম দিন। সঙ্গত কারণে রাস্তাঘাটে মানুষের আনাগোনা কম দেখা গেছে। তাছাড়া র‍্যাবসহ সব আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মাঠ পর্যায়ে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে। মাঠ পর্যায়ে আজ সরকারি নির্দেশ প্রতিপালনে সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ ও সহযোগিতা পেয়েছি।
তিনি বলেন, আমরা শতাধিক স্থানে সচেতনতা তৈরিতে মানুষের মাঝে করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেছি। আমাদের এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।
এছাড়া আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। যারা অহেতুক অকারণে বের হবেন, সরকারি নির্দেশনা প্রতিপালনে অনীহা প্রদর্শন করবেন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএমপির গণমাধ্যম শাখার অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ইফতেখারুল ইসলাম সাংবাদিকদেরকে বলেন, আইজিপি স্যারের নির্দেশনায় কমিশনার স্যারের নির্দেশে রাজধানীতে পুলিশ সরকারি নির্দেশনা প্রতিপালনে কাজ করছে। এটি পালন করতে গিয়ে অনেকে পুলিশের কথা মানতে চাচ্ছেন না। আবার অনেকে নিজে থেকেই মানছেন। অলিগলিতে লোকজন ভিড় করছেন তা জেনে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে।

এছাড়া এবিষয়ে জানতে চাইলে পুলিশ সদর দফতরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি মিডিয়া) মো. সোহেল রানা সাংবাদিকদেরকে জানান, পুলিশ শুধুমাত্র সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে কাজ করছে। জনগণকে আরও বেশি সচেতন হতে হবে। তা না হলে কোনোদিন এই সীমিত জনবল দিয়ে কোটি কোটি মানুষকে সচেতন করা সম্ভব হবে না।

তিনি আরও বলেন, বুঝতে হবে, পুলিশও মানুষ। তাদেরও সংসার আছে, তাদের খেতে ও ঘুমাতে হয়। এর মধ্য দিয়েই জনগণের সেবা করছে পুলিশ। কাজেই করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।