কদমতলী থেকে র্কিশোর গ্যাং লিডার কাইল্লা মুরাদ ও বাঘা রাজু অস্ত্রসহ গ্রেফতার

এস,এম,মনির হোসেন জীবন- রাজধানীর কদমতলী থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে কিশোর গ্যাং লিডার কাইল্লা মুরাদ (২১) ও বাঘা রাজু (২৪)কে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

এসময় তাদের নিকট থেকে ১টি শুটার গান, ১টি চাপাতি ও ১ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।
র‍্যাব-১০ এর (অধিনায়ক) এ্যাডিশনাল ডিআইজি মাহ্ফুজুর রহমান, বিপিএম আজ সোমবার এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিওিতে রোববার দিবাগত রাত ১০ টার দিকে র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল রাজধানী ঢাকার কদমতলী থানার পাটেরবাগ ইতালি মার্কেট এলাকায় একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযানকালে র‌্যাব সদস্যরা ডিএমপি’র কদমতলী থানার মামলা নং- ৬৩, তারিখ- ২৪/০৪/২০২১ ইং, ধারা- ১৪৩/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৫০৬/১১৪ পেনাল কোড মামলার র্দুর্র্ধষ আসামী কিশোর গ্যাং লিডার কাইল্লা মুরাদ (২১) ও বাঘা রাজু (২৪)কে আটক করে।
এসময় তাদের নিকট থেকে ১টি শুটার গান, ১টি চাপাতি ও ১ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, অত্র মামলার বাদী আবুল হাসানের ছেলে আমিনুল ইসলাম ডালিম(৩২) কদমতলী থানার পাটের বাগ ইতালি মার্কেটের ইন্টারনেট ব্যবসায়ী। গত ২২/০৪/২১ সময় আনুমানিক রাত সাড়ে ৭ টার দিকে পূর্ব বিরোধের জের ধরে আমিনুল ইসলাম ডালিমকে ধৃত কাইল্লা মুরাদ (২১), বাঘা রাজু(২৪) ও অন্যান্য সন্ত্রাসীরা ইতালি মাকের্টের সামনে ধারালো অস্ত্র ও চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। পরবর্তীতে আমিনুল ইসলাম ডালিমকে গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

আসামীরা আরও জানায়, তারা কদমতলী থানার মুরাদপুর ও পাটেরবাগ এলাকায় তাদের কিশোর গ্যাং বাহিনী রয়েছে। এছাড়া তারা ওই এলাকায় দীর্ঘদিন যাবৎ চুরি, ছিনতাই, মারামারি ও চাঁদাবাজি করে আসছে।
ডিআইজি মাহ্ফুজুর রহমান জানান, যদিও তারা কিশোর গ্যাং এর সদস্য কিন্তু তাদের অধিকাংশের বয়স ২০ থেকে ২৫ বৎসরের মধ্যে। এ ঘটনাটি প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে।
এবিষয়ে গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে কদমতলী থানায় আরো একটি পৃথক মামলা দায়েরের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান তিনি।