রাজধানীতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে কিশোর গ্যাং’র ৬ সদস্য গ্রেফতার

এস, এম, মনির হোসেন জীবনঃ রাজধানীর ওয়ারীতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে কিশোর গ্যাং’র ৬ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিরা হচেছ- মোঃ শামসুল হক হৃদয় (২৪), মুরাদ হোসেন (২৩), মোঃ আকবর হোসেন ওরফে সোহেন (২৪), মোঃ আকবর হোসেন (৩০), মোঃ রিপন (২৭) ও রাকিব (২৩) ।

আটোককৃতরা কিশোর গ্যাং গ্রুপ পিচ্চি হৃদয় , মুরাদ এবং আকবর গ্রুপের সদস্য বলে জানা গেছে।

এসময় তাদের নিকট থেকে ২ টি সুইচ গিয়ার, ১ টি চাপাতি, ৩ টি ছুরি, ৪ টি মোবাইল ও নগদ- ১২৪০ টাকা উদ্ধার করা হয়। র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-১০) এর কমান্ডিং অফিসার (অধিনায়ক) মাহফুজুর রহমান বিপিএম আজ শনিবার এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, র‌্যাব-১০ এর এএসপি (মিডিয়া) এনায়েত কবীর সোয়েব আজ শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গোপন সংবাদের ভিওিতে র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে ১০ টার দিকে রাজধানীর ওয়ারী থানার জয়কালি মন্দির এবং কাপ্তান বাজার এলাকায় একটি বিশেষ অভিযান চালিয়ে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ কিশোর গ্যাং’র ৬ সদস্যকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে – মোঃ শামসুল হক হৃদয় (২৪), মুরাদ হোসেন (২৩), মোঃ আকবর হোসেন ওরফে সোহেন (২৪), মোঃ আকবর হোসেন (৩০), মোঃ রিপন (২৭) ও রাকিব (২৩) ।

এসময় তাদের নিকট থেকে ২ টি সুইচ গিয়ার, ১ টি চাপাতি, ৩ টি ছুরি, ৪ টি মোবাইল ও নগদ- ১২৪০ টাকা উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ধৃত অপরাধীরা স্থানীয়ভাবে বিভিন্ন নামে পরিচিত কিশোর গ্যাং গ্রুপ পিচ্চি হৃদয় , মুরাদ এবং আকবর গ্রুপের সদস্য। বিভিন্ন জনবিরল স্থানে তারা একাকী পথচারীদের আকস্মিকভাবে ঘিরে ধরে আশেপাশের কেউ বুঝে ওঠার আগেই অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক মানিব্যাগ, টাকা-পয়সা, স্বর্ণালংকার, মোবাইল হ্যান্ডসেট, ল্যাপটপ, সাথে বহন করা দ্রব্য সামগ্রীর ব্যাগ প্রভৃতি ডাকাতি করে দ্রুত পালিয়ে যেত।

গ্রেফতারকৃত অপরাধীরা র‌্যাবকে জানান, ডাকাতি/ছিনতাই ছাড়াও তারা মাদক সেবন, খুচরা মাদকের ব্যবসা, চাঁদাবাজি, ইভটিজিং, পাড়ায়-মহল্লায় মারামারি এবং স্থানীয় ভূমি দস্যুদের পক্ষে অপদখলীয় জমিতে গিয়ে পেশী শক্তির মহড়া প্রদর্শনসহ নানা অপকর্মের সাথে জড়িত রয়েছে।

এছাড়া প্রায় সময় তারা এলাকায় প্রভাব বিস্তারকল্পে দলবদ্ধ হয়ে সংঘাত সৃষ্টি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে ত্রাসের পরিবেশ সৃষ্টি করে। পাশাপাশি তারা নিজেদের গ্রুপের আধিপত্য বজায় রাখার জন্য অন্যান্য কিশোর গ্যাং এর সাথে মারামারিসহ নানা সশস্ত্র সংঘর্ষেও তারা জড়াতো বলে জানা যায়। এবিষয়ে আটোককৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।