মোহাম্মদপুরে কিশোর গ্যাং “পাটালী গ্রুপ” ও “অ্যালেক্স ইমন” গ্রুপের ১১ সদস্য গ্রেফতার

এস,এম,মনির হোসেন জীবনঃ রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকায় পৃথক দু’টি অভিযান চালিয়ে কিশোর গ্যাং “পাটালী গ্রুপ” এবং “অ্যালেক্স ইমন গ্রুপ” এর ১১ সদস্য’কে দেশীয় অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

এসময় তাদের নিকট থেকে ৩ টি লম্বা ছুরি, ২ টি চাকু, ২ টি লোহার তৈরি ছুরি, ৪ টি ফোল্ডিং চাকু উদ্ধার মুলে জব্দ করা হয়।

এদের মধ্যে কিশোর গ্যাং পাটালী গ্রুপের ৩ জন ও অ্যালেক্স ইমন গ্রুপের ৮ জন সদস্য রয়েছে।

আটককৃতরা হচ্ছে – মোঃ শরিফুল ইসলাম ওরফে পিয়াল (২২), মোঃ আলী হোসেন (১৯), মোঃ চাঁন মিয়া (১৯), মোঃ রাব্বি ইসলাম ওরফে আকাশ (১৬), মোঃ রনি খান (১৪), মোঃ আরিফ হোসেন ওরফে রিফাত (১৪), মোঃ আবির (১৩), মোঃ রনি (১৬), মোঃ সাগর (১৫), মোঃ রায়হান (১৬), ও মোঃ রবিউল ইসলাম (১৫)।

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব -২) এ এএসপি (মিডিয়া) আবদুল্লাহ আল মামুন আজ রোববার এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিওিতে শনিবার দিবাগত রাত পৌনে ৮ টা থেকে রাত সোয়া ১০ টার পর্যন্ত রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানার বেড়িবাঁধ রোডস্থ শহীদ বুদ্ধিজীবি কবরস্থান ২নং গেইটের সামনে এবং বেড়িবাঁধ রোডস্থ আজিজ খান রোডের এলাকায় পৃথক পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

কিশোর গ্যাং পাটালী গ্রুপের গ্রেফতারকৃতরা হচেছ- মোঃ শরিফুল ইসলাম ওরফে পিয়াল (২২), পিতা-মোঃ বাচ্চু মিয়া, জেলা-বরিশাল, মোঃ আলী হোসেন (১৯), পিতা-মোঃ আলম, ডিএমপি, ঢাকা, মোঃ চাঁন মিয়া (১৯), পিতা-মোঃ জালাল শেখ, জেলা-মুন্সিগঞ্জকে আটক করে।

এসময় তাদের তিন জনের নিকট থেকে ১ টি লম্বা ছুরি ও ২ টি চাকু উদ্ধার মুলে জব্দ করা হয়।

এছাড়া “অ্যালেক্স ইমন” গ্রুপের ৮ সদস্যরা হচ্ছে – মোঃ রাব্বি ইসলাম ওরফে আকাশ (১৬), পিতা-মোঃ হাসান তালুকদার, জেল-নেত্রকোণা, মোঃ রনি খান (১৪), পিতা-মোঃ আজিজুল খান, ডিএমপি, ঢাকা, মোঃ আরিফ হোসেন ওরফে রিফাত (১৪), পিতা-মোঃ রিপন, ডিএমপি, ঢাকা, মোঃ আবির (১৩), পিতা-মোঃ জহির খান, জেলা-বরিশাল, মোঃ রনি (১৬), পিতা-মোঃ আইন উদ্দিন, জেলা-কিশোরগঞ্জ, ডিএমপি, ঢাকা, মোঃ সাগর (১৫), পিতা-মোঃ মিষ্টু মিয়া, জেলা-কিশোরগঞ্জ, মোঃ রায়হান (১৬), পিতা-মোঃ সাহেদ মিয়া, জেলা-হবিগঞ্জ, ও মোঃ রবিউল ইসলাম (১৫), পিতা-মোঃ আনিছ হাওলাদার, জেলা-বরিশালকে আটক করে।

এসময় তাদের কাছ থেকে ২ টি লম্বা ছুরি, ২ টি লোহার তৈরি ছুরি, ৪ টি ফোল্ডিং চাকু উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গ্রেফতারকৃত এই কিশোর অপরাধীরা বিভিন্ন জনবিরল এমনকি জনসমাগমপূর্ণ স্থানেও তারা একাকী পথচারীদের আকস্মিকভাবে ঘিরে ধরে আশেপাশের কেউ বুঝে ওঠার আগেই অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক মানিব্যাগ, টাকা-পয়সা, স্বর্ণালংকার, মোবাইল হ্যান্ডসেট, ল্যাপটপ, সাথে বহন করা দ্রব্যসামগ্রীর ব্যাগ প্রভৃতি ছিনিয়ে নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যেত।

এএসপি আবদুল্লাহ আল মামুন আরও জানান, গ্রেফতারকৃত কিশোর অপরাধীরা স্বীকার করে যে, ছিনতাই ছাড়াও মাদক সেবন, খুচরা মাদকের ব্যবসা, চাঁদাবাজি, ইভটিজিং, পাড়ায়-মহল্লায় মারামারি এবং স্থানীয় ভূমিদস্যুদের পক্ষে অপদখলীয় জমিতে গিয়ে পেশীশক্তির মহড়া প্রদর্শনসহ নানা অপকর্মের সাথে জড়িত রয়েছে।

র‌্যাব -২ সূএে জানা যায়, এছাড়া প্রায় তারা এলাকায় প্রভাব বিস্তারকল্পে দলবদ্ধ হয়ে সংঘাত সৃষ্টি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে ত্রাসের পরিবেশ সৃষ্টি করে।

এছাড়া নিজেদের গ্রুপের আধিপত্য বজায় রাখার জন্য অন্যান্য কিশোর গ্যাং এর সাথে মারামারিসহ নানা সশস্ত্র সংঘর্ষেও তারা প্রায়শই জড়িয়ে পড়ে।
এবিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।