শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী বলেই দেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল

 হযরত আলী হিরু( পিরোজপুর): মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম (এমপি) বলেছেন, শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী বলেই দেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিনত হয়েছে।

শেখ হাসিনার সরকার গরীব বান্ধব এবং জনবান্ধব সরকার। তিনি আছেন বলেই এ দেশে একটা লোকও না খেয়ে মারা যায় না। বাজার সহনীয় পর্যায় এবং খামারীরা যাতে ক্ষতিগ্রস্থ না হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে বাজারে ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় কেন্দ্র করা হয়েছে।

করোনা মহামারির পরিস্থিতিতে জীবন ও জীবিকা নির্বাহের মধ্য দিয়ে আমাদেরকে এগিয়ে যেতে হবে সামনের দিকে।
পিরোজপুর সদর উপজেলায় প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী দিন ব্যাপী মেলা উপলক্ষে জেলা প্রাণিসম্পদ মিলনায়তনে এ প্রদর্শনী মেলার উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী একথা বলেন।

এসময় মন্ত্রী আরও বলেন, কেউ যদি মাছ চাষ করতে চায় আমরা তার পুকুর খনন করে বিনা মূল্যে মাছের পোনাও সরবরাহ করব। চাকুরির পিছনে না ঘুরে আমাদের নিজেই নিজের উদ্যোক্তা হওয়া উচিত এবং আমরা স্বাবলম্বী হয়ে গ্রামীন অর্থনীতিকে স্বচল রাখবো।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারন করতে না পারলে, আমাদের উন্নতি ব্যহত হবে। তাই মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারন করে দেশটাকে সবাই মিলে এগিয়ে নিতে হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বশির আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক আবু আলী মো.সাজ্জাদ হোসেন, পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান।

প্রদর্শনী মেলায় বিভিন্ন খামারীদের ২৫টি স্টল অংশ গ্রহণ করে। এসময় মন্ত্রী খামারীদের স্টলগুলো ঘুরে দেখেন এবং তিনি প্রাকৃতিক দূর্যোগে ক্ষতিতগ্রস্ত গোখামারীদের হাতে গোখাদ্য ও ভিটামিন তুলে দেন। পরে সদর উপজেলা পরিষদের আয়োজনে প্রাকৃতিক দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ঢেউটিন ও চেক বিতরণ, বিভিন্ন কর্মসংস্থানের নিমিত্তে সুফলভোগীদের মাঝে বকনাগরু বিতরণ এবং মন্দিরভিত্তিক শিক্ষাকার্যক্রমের পুরস্কার ও সাউন্ডসিস্টেম বিতরণ করেন। এরপূর্বে পিরোজপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে পিরোজপুর জেলা মৎস্য দপ্তর ও মৎস্য অধিদপ্তরের দেশীয় প্রজাতির মাছ এবং শামুক সংরক্ষণ ও উন্নয়ন প্রকল্প, গোপালগঞ্জ এর আয়োজনে অনুষ্ঠিত

অবহিতকরন সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যে বলেন,বিলুপ্তপ্রায় দেশীয় প্রজাতির মাছ, শামুক ও ঝিনুকের প্রজনণ বৃদ্ধি করে এবং কৃত্রিমভাবে চাষাবাদের ব্যবস্থা করতে হবে। আর এ বিষয়ে মৎস্য অধিদপ্তর ব্যাপক গবেষণা করে ইতিমধ্যে বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া দেশীয় প্রজাতির মাছের রেনু ও পোনা তৈরী করছে। যা দেশের খাল-বিল, নদী, হাওর-বাওর ও জলাশয়ে ছড়িয়ে দেয়া হবে। এছাড়া কৃত্রিমভাবে শামুক ও ঝিনুকের চাষাবাদও শুরু হয়েছে।

সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন।সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মৎস্য অধিদপ্তরের বরিশাল বিভাগীয় উপ-পরিচালক আনিছুর রহমান তালুকদার এবং প্রকল্প বিষয়ে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দেশীয় প্রজাতির মাছ এবং শামুক সংরক্ষণ ও উন্নয়ন প্রকল্পের পরিচালক এস এম আশিকুর রহমান। অবহিতকরণ সভায়, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, মৎস্য কর্মকর্তা, সরকারী কর্মকর্তা, মৎস্য খামারী ও মৎস্য চাষী, জেলেসহ বিভিন্ন পেশার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।