ভূল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতাল ভাঙচুর

মোঃশামীম শেখ তুষার(কেরানীগঞ্জ)ঃঢাকার কেরানীগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতালে ভাঙচুর চালিয়েছে রোগীর স্বজন ও বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।

মৃতের নাম শেফালী আক্তার (৫০), সে জিনজিরা ইউনিয়নের বন্দ ডাকপাড়া এলাকার আহমদ মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া নাসির শিকদারের স্ত্রী ও শরীয়তপুর জেলার এলেম চর গ্রামের হাসান হাওলাদারের মেয়ে।

আজ ১২ই জুলাই সংবাদ রাত ৮ ঘটিকায় কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন কদমতলী মডেল টাউন এলাকায় আল বারাকা হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে।এই সময় রোগীর স্বজন ও বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী হাসপাতালের সামনের গ্লাসের ফটক, চেয়ার টেবিলসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাঙচুর করে।

নিহতের মেয়ে পিংকি ঘটনা প্রসঙ্গে জানান, গত ৩রা জুলাই হাতের টিউমার অপারেশনের জন্য তার মাকে আল বারাকা হাসপাতালে ভর্তি করেন। সন্ধ্যায় অপারেশনের জন্য তার মাকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে গেলে সেখানে এনেসথেসিয়া ডাক্তার ছাড়াই তাকে অপারেশনের জন্য অজ্ঞান করা হয়। দীর্ঘক্ষণ জ্ঞান না ফেরায় তাকে পরবর্তীতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অ্যাম্বুলেন্স ডেকে এনে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল স্থানান্তর করে।

এরপর সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আটদিন আইসিওতে ভর্তি থাকার পর গতকাল রাত ৯ টার দিকে তার মৃত্যু হয়। মিটফোর্ড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ লাশ হস্তান্তরের সময় আল বারাকা হাসপাতাল ভুল চিকিৎসা করেছে এমন তথ্য জানানোর পর মায়ের দাফন শেষে আজ সন্ধ্যায় হাসপাতালে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গেলে তাদের সাথে তর্ক বিতর্ক শুরু হয়। তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে রোগীর আত্মীয় ও স্থানীয় এলাকাবাসী হাসপাতালে ব্যাপক ভাঙচুর ভাঙচুর চালায়।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) কাজী রমজানুল হক জানান, হাসপাতাল ভাংচুরের খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে এলাকাবাসীকে শান্ত করার চেষ্টা করি। উভয়পক্ষকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে, তদন্ত সাপেক্ষে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।