বাংলাদেশ নেপালের ৪ সমঝোতা স্মারক

পর্যটন ও রেল ট্রানজিটসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়াতে ৪টি সমঝোতা স্মারক সই করেছে বাংলাদেশ ও নেপাল।সোমবার (২২ মার্চ) সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও নেপালের রাষ্ট্রপতি বিদ্যা দেবী ভান্ডারীর উপস্থিতিতে এসব সমঝোতা স্মারক সই হয়।

 পর্যটন সহযোগিতা বিষয়ক সমঝোতা স্মারকে সই করেন বাংলাদেশের পক্ষে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন সচিব মোকাম্মেল হোসেন এবং নেপালের পক্ষে সংস্কৃতি, পর্যটন ও সিভিল এভিয়েশন সচিব যাদব প্রসাদ কৈরালা।এর আগে দুই রাষ্ট্রপ্রধান বঙ্গভবনের ক্রেডেনশিয়াল হলে বৈঠক করেন।

স্যানিটারি ও ফাইটোস্যানিটারি বিষয়ক সমঝোতা স্মারকে সই করেন বাংলাদেশের পক্ষে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মেসবাহুল ইসলাম এবং নেপালের শিল্প, বাণিজ্য ও সরবরাহ সচিব দিনেশ ভট্টারি।২০২২-২০২৫ সাল পর্যন্ত সাংস্কৃতিক বিনিময় বিষয়ক সমঝোতা স্মারকে সই করেন বাংলাদেশের পক্ষে সংস্কৃতি সচিব বদরুল আরেফীন এবং নেপালের পক্ষে দেশটির সংস্কৃতি, পর্যটন ও সিভিল এভিয়েশন সচিব যাদব প্রসাদ কৈরালা।

লেটার অব এক্সচেঞ্জ অন রোহানপুর-সিংঘাবাদ রেলওয়ে রুট (অ্যামেন্ডমেন্ট টু নেপাল-বাংলাদেশ ট্রানজিট এগ্রিমেন্ট) শীর্ষক বিনিময়পত্রে সই করেন বাংলাদেশের পক্ষে বাণিজ্য সচিব জাফর উদ্দীন এবং নেপালের পক্ষে শিল্প, বাণিজ্য ও সরবরাহ সচিব দিনেশ ভট্টারি।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বাংলাদেশের কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন,  বেমসামরিক বিমান পরিবহন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, নেপালের দিক থেকে বিদ্যা ভান্ডারীর মেয়ে ঊষা কিরণ ভান্ডারী, পররাষ্ট্র মন্ত্রী প্রদীপ কুমার গিওয়ালি।