মুগদা হাসপাতালে চলছে করোনা রোগীর চিকিৎসা

মার্চ মাসের শুরুতে ৫০ থেকে ৬০ জন রোগী ছিলো। এখন বেড়ে ২৫৯ জন করোনা রোগী ভর্তি আছে। মুগদা হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটের (আইসিইউ) বেড ছিলো ১৪টি। সেটা বাড়িয়ে ১৯টি করা হলেও আইসিইউতে সিট পেতে বেগ পেতে হচ্ছে রোগীদের। আমাদের আইসিইউতে সব সময় পরিপূর্ণ রোগী থাকে। মুগদা হাসপাতালের পরিচালক ডা. অশিন কুমার নাথ বলেন, এখন করোনা রোগীর সংখ্যা প্রচুর। প্রতিদিনই আমাদের হাসপাতালে রোগী ভর্তি হচ্ছে। করোনা রোগী ছাড়া অন্য কোনো রোগীদের আমরা ভর্তি নিচ্ছি না।
তিনি আরও বলেন, মার্চের শুরুতেই রোগীর সংখ্যা আস্তে আস্তে বাড়তে থাকে। মার্চের প্রথম দিকে রোগী ছিলো ৫০ থেকে ৬০ জন। করোনার রোগী এতটাই বেড়েছে আজকে মোট রোগী ভর্তি ২৫৯ জন। মুগদা জেনারেল হাসপাতাল ৩১০ শয্যা। এই ধরনের প্রতিদিন রোগী যদি বাড়তে থাকে তাহলে তো আর হাসপাতালে জায়গা দেওয়া যাবে না। তাই আপনারা সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল করুন, করোনা প্রতিরোধের চেষ্টা করুন।

পরিচালক বলেন, গতকালের ৩৫ জন করোনা রোগী ভর্তি হয়েছে। আজকের হিসাবটা এখনো পাইনি। প্রতিদিনই করোনা রোগী বাড়ছে। একসময় তো হাসপাতাল পরিপূর্ণ হয়ে যাবে। তাদের চিকিৎসা দেওয়ার জায়গা খুঁজে পাওয়া যাবে না। তাই আপনারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাফেরা করুন। করোনা প্রতিরোধ করার চেষ্টা করুন।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, শয্যা ছাড়া করোনো রোগীদের ভর্তি নেবো কীভাবে? কারণ সেখানে অক্সিজেনের ব্যাপার আছে। সেন্টাল অক্সিজেন মাধ্যমে রোগীদের অক্সিজেন দেওয়া হয়। বর্তমানে মুগদা হাসপাতালের দুই-একজন ছাড়া সব করোনা রোগীকে অক্সিজেন দেওয়া লাগছে। হাসপাতালের রোগীদের সেবা দিতে গিয়ে চিকিংসক নার্স ও স্টাফরা কয়েকজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। সুরক্ষা সামগ্রী ও আপাতত চিকিৎসকের কোনো সংকট নেই।