বিমানবন্দর ও বনশ্রীতে বহুতল ভবন থেকে পড়ে ২ নির্মাণ শ্রমিক নিহত

এস,এম,মনির হোসেন জীবন : রাজধানীর বিমানবন্দর ও দক্ষিণ বনশ্রী পৃথক দু’টি থানা এলাকায় বহুতল ভবনে নির্মানাধীন কাজ করার সময় অসাবধানবশত: নিচে পড়ে দুই নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

নিহতরা হলেন-মো: মামুন (১৭) ও মতিউর রহমান (৫০) । এদের মধ্যে মামুন রাজমিস্ত্রি ও মতিউর রডমিস্ত্রি হিসেবে কাজ করতেন বলে জানা গেছে।

আজ সোমবার বিকেলে ও দুপুরে পৃথক দু’টি থানা এলাকায় এ দুর্ঘটনা দু’টি ঘটে।
ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ ওসি মো: বাচ্চু মিয়া আজ সোমবার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি মৃত মামুনের সহকর্মী ইকবাল শেখের উদ্বিতি দিয়ে জানান, তারা বিমানবন্দরের ভেতরে একটি নির্মাণাধীন বহুতল ভবনে কাজ করছিলেন। মামুন সেখানে রাজমিস্ত্রি হিসেবে কাজ করতেন।

আজ সোমবার বিকেল ৪টার দিকে মামুন তিন তলার বাইরের দিকে মাচান বেঁধে কাজ করছিলেন। এ সময় অসাবধানতাবশত মাচান থেকে নিচে পড়ে গুরুতর আহত হন। পরে তাৎক্ষণিকভাবে তাকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক বিকেল ৫টার দিকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, মামুন দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার মোহনপুর গ্রামের মাজেদুল ইসলামের ছেলে। বর্তমানে ওই নির্মাণাধীন ভবনেই থাকতেন।

এদিকে, ডিএমপির খিলগাঁও থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ফেরদৌস জানান, রাজধানীর থিলগাও থানার বনশ্রীতে একটি নির্মাণাধীন ভবনে রডমিস্ত্রি হিসেবে কাজ করছিলেন মতিউর। সোমবার দুপুরে ভবনের সাততলায় কাজ করার সময় অসাবধনতাবশত নিচে পড়ে গুরুতর আহত হন তিনি। পরে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও জানান, মতিউরের বাড়ি গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার বগমানপুর গ্রামে। বর্তমানে খিলগাঁও পশ্চিম নন্দিগ্রামে থাকতেন।
ওসি মো: বাচ্চু মিয়া আরও জানান, পৃথক দু’টি ঘটনায় নিহত দুই জনের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। দু’টি ঘটনায় সংশ্লিস্ট থানা পুলিশকে অবগত করা হয়েছে। তারা এব্যাপারে পরবর্তীতে আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।